Home / সংবাদ সারাদিন / নারী নির্যাতন / প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে গণধর্ষণ

প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে গণধর্ষণ

rep11কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় এক গার্মেন্ট কর্মী (২০) গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। প্রেমের ফাঁদে ফেলে ওই তরুণীকে কথিত প্রেমিক ডেকে নিয়ে তার ৫/৬ জন সহযোগীকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় গার্মেন্টকর্মীর মা বাদী হয়ে ৪জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ২/৩জনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় মামলা (নং-২২৩/১৪) করেছেন। মামলার দায়েরের পর পুলিশ বুধবার সকালে পাকুন্দিয়া সদর বাজারে অভিযান চালিয়ে কথিত প্রেমিক সামাদ মিয়া (৩০) কে আটক করে। আটককৃত সামাদ মিয়া উপজেলার আঙ্গিয়াদি গ্রামের মৃত তাহের উদ্দিনের ছেলে।

[sc:rits] পুলিশ জানায়, পাকুন্দিয়া উপজেলার চরটেকী বন্দেরবাড়ি গ্রামের ওই গার্মেন্ট কর্মীর সঙ্গে প্রায় এক বছর আগে সামাদের পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মন দেওয়া নেওয়ার একপর্যায়ে গত ২রা আগস্ট বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই তরুণীকে ডেকে নেয় প্রেমিক সামাদ। এরপর থেকে প্রেমিক সামাদ ও তার সহযোগিরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে আটকে রেখে তরুণীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আসছিল। একপর্যায়ে আঙ্গিয়াদী টানপাড়া মুর্শিদের বাড়িতে অবস্থানকালে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে ওই বাড়ি থেকে পাশবিক নির্যাতনের শিকার তরুণীকে উদ্ধার করে। পরে তরুণীর ভাষ্য অনুযায়ী অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। পরে বুধবার সকালে পাকুন্দিয়া সদর বাজার থেকে প্রেমিক সামাদকে আটক করে পুলিশ।
এ ব্যাপারে পাকুন্দিয়া থানার ওসি হাসান আল মামুন বলেন, ঘটনায় জড়িত প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আজ বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও ওসি জানান।

About Syed Rubel

Creative Writer/Editor And CEO At Amar Bangla Post. most populer bloger of bangladesh. Amar Bangla Post bangla blog site was created in 2014 and Start social blogging.

Check Also

সেতুর নিচে পাওয়া গেল ধর্ষিত তরুণীর লাশ

নীলফামারীতে ২২ বছর বয়সী অজ্ঞাত এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকাল ১০টার দিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *