Home / স্বাস্থ্য / খাদ্য ও পুষ্টি / মধুর পুষ্টিগুণ

মধুর পুষ্টিগুণ

মধুতে উচ্চ মাত্রায় পুষ্টিমান বিদ্যমান। এক কেজি মধু, ৬.৫০ লিটার দুধ অথবা ৭.৫০ কেজি পনির অথবা ১.৬৫ কেজি মাংস অথবা ৪০ টি সমান সাইজের কমলা অথবা ৫০ টি ডিমের পুষ্টিমানের সমান। এক কেজি মধু ৩২৫০ ক্যালরি শক্তি সরবরাহ করে। মধুর এ উচ্চশক্তির ক্যালরি কেবল সাধারণ সুগারের ন্যায় যা রূপান্তর ব্যতীত সরাসরি অন্ত্র থেকে রক্তে সংযোজিত হয়।

খনিজ উপাদান ও ভিটামিনঃ রাসায়নিক পরীক্ষায় জানা যায় যে, মানব দেহের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বিভিন্ন খনিজ উপাদান ও ভিটামিন মধুতে রয়েছে। বিস্ময়কর প্রাকৃতিক উপাদান মধুর প্রধান উপকরণ হলো সুগার। যার ভিতরে লেভিউলোজ ৩৯%, ডেক্সট্রোজ ৩১%, ম্যালটোজ ৯% গ্লুকোজ ১% এবং সুক্রোজ সামান্য পরিমাণে থাকে। এতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক এনজাইম ২% এবং মানবদেহের কোষ—কলা, অঙ্গ গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য উপাদান থাকে।

পাকস্থলী ও অন্ত্রের রোগ, কোষ্ঠকাঠিন্য, অম্লাধিক্য, মুখের প্রদাহ, চোখের রোগ, চোখের পাতায় প্রদাহ, কর্ণিয়ার অস্বচ্ছতা, স্নায়ুরোগ, পক্ষাঘাত, মুখের পক্ষাঘাত ও মৃগীরোগ, কার্ডিওভাসকুলার রোগ, অ্যাথেরোস্কেলেরোসিস, রক্ত প্রবাহের অবরুদ্ধতা জনিত হৃদরোগ এবং উচ্চ রক্তচাপ, ত্বকের রোগ, ক্ষত, ইয়্বকের এলার্জি এবং বিভিন্ন প্রকার উচ্চ রঞ্জকতা ইত্যাদিতে মধু উপকারী। সর্দি, কাশি, টাইফয়েড, জ্বর, নিউমোনিয়া ও আমাশয়েও মধু উপকারী। আধুনিক ফার্মাকোলজিক্যাল গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, মধুহৃদ পেশীর কার্যক্রম বৃদ্ধি করে রক্তনালী প্রসারণের মাধ্যমে রক্ত সঞ্চালনে সহায়তা করে এবং পেশীর কার্যক্রম স্বাভাবিক করে রোগ প্রতিরোধ করে। ভিটামিন—বি কমপ্লেক্স এবং ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ মধু স্নায়ু এবং মস্তিকের কলা সুদৃঢ় করে। মধু এক প্রকার ওষুধ, যার পচন নিবারক (এন্টিসেপটিক), কোলেস্টেরল বিরোধী এবং ব্যাকটেরিয়া বিরোধ ধর্ম আছে। এক গবেষণায়ভ জানা যায় যে, নিউমোনিয়া, টাইফয়েড  এবং আমাশয়ের জন্য দায়ী জীবাণু মধু দ্বারা যথাক্রমে ৪ দিন, ৪৮ ঘন্টা এবং ১০ ঘন্টায় ধ্বংস হয়।

0%

User Rating: Be the first one !

About Syed Rubel

Creative Writer/Editor And CEO At Amar Bangla Post. most populer bloger of bangladesh. Amar Bangla Post bangla blog site was created in 2014 and Start social blogging.

Check Also

জিরা পানি খাওয়ার উপকারিতা | জেনে নিন জিরা পানি খেলে কি হয়

মসলা হিসেবে জিরার গুনের কথা সবাই জানে। খাবারকে সুগন্ধী ও সুস্বাদু করতে প্রয়োজন হয় জিরার। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *