Home / ইসলাম / মাসআলা মাসায়েল / আদর্শ স্ত্রীর গুণাবলী

আদর্শ স্ত্রীর গুণাবলী

52আদর্শ স্ত্রী’র গুণাবলী

এই পোস্ট এ হাদীসের আলোকে একজন আদর্শ স্ত্রী’র গুণাবলী তুলে ধরা হয়েছে। আমরা আশা করবো বোনেরা নিজেদেরকে আদর্শ স্ত্রী হিসেবে স্বামীদের কাছে প্রতিষ্ঠিত হবেন।

 

মাসআলা-৪৩ : কুমারী, মিষ্টিভাষী, শান্ত মিজাজ, অল্পে তুষ্ট, স্বামীর মন লোভানো, অধিক সন্তান প্রসব কারিনী নারী আদর্শ জীবন সঙ্গিনীঃ

“আব্দুর রহমান বিন সালেম বিন উতবা বিন আদীম বিন সায়েদা আনসারী তাঁর পিতা থেকে, সে তাঁর দাদা (রাযিয়াল্লাহ আনহুম) থেকে বর্ণ্না করেছেন, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ তোমরা কুমারী নারীদেরকে বিয়ে কর, কেননা তারা মিষ্টভাষী, অধিক সন্তনা প্রসব করে, আর অল্পে তুষ্ট থাকে”।(ইবনু মাযা) [1]

“কোন এক যুদ্ধে আমরা নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এর সাথে অংশ গ্রহণ করে, ফিরার পথে মদীনার কাছা কাছি পৌঁছার পর আমি বললামঃ ইয়া রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আমি নববিবাহিত, তিনি জিজ্ঞাস করলেন তুমি বিয়ে করেছ? আমি বললাম হাঁ। তিনি জিজ্ঞেস করলেন কুমারী না বিবাহিত? আমি বললামঃ বিবাহিতা। তিনি বললেনঃ কুমারী কে কেন বিয়ে করলে না? সে তোমার সাথে আনন্দ করত আর তুমিও তাঁর সাথে আনন্দ করতে”।(বুখারী ও মুসলিম)[2]

মাসআলা-৪৪ : স্বামীর অনপুস্থিতিতে তাঁর  সম্পদ ও সম্মান রক্ষাকারিনী এবং স্বীয় স্বামী ভক্তা ও ওয়াদা পালন কারিনী নারী আদর্শ স্ত্রী :

“আব্দুল্লাহ বিন সালাম (রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ উত্তম স্ত্রী সে যার দিকে তাকালে তুমি আনন্দ উপভোগ করবে, তুমি কোন নির্দেশ দিলে সে তা পালন করবে, আর তোমাদের অনপুস্থিতিতে তোমার সম্পদ এবং নিজেকে সে সংরক্ষণ করবে।”(ত্বাবারানী)[3]

মাসআলা-৪৫ : সন্তানদেরকে মোহাব্বত কারিনী এবং স্বামীর সমস্ত বিষয়ে বশ্বস্ত নারী আদর্শ স্ত্রী :

আবু হুরাইরা (রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ আমি রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কে বলতে শুনেছি তিনি বলেছেনঃ উটে আরোহণকারী নারীদের মধ্যে উত্তম নারী কোরাইশ বংশের নারীরা, তারা সন্তানদের প্রতি অত্যন্ত সদয়, আর স্বীয় স্বামীর ধন-সম্পদ রক্ষায় অত্যন্ত বিশ্বস্ত। (মুসলিম) [4]

মাসআলা-৪৬ :  স্বামীর যৌবনের চাহিদার প্রতি সম্মান প্রদর্শনকারী নারীর প্রতি আল্লাহ সন্তুষ্ট থাকেন :

আবু হুরাইরা (রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ ঐ সত্বার কসম যার হাতে আমার প্রাণ! যখন কোন ব্যক্তি তাঁর স্ত্রীকে বিছানায় আসার জন্য ডাকে, আর তাঁর স্ত্রী তা প্রত্যাখ্যান করে, তখন ঐ স্ত্রীর প্রতি ঐ সত্বা যিনি আসমানে আছেন তিনি অসন্তুষ্ট থাকেন।(মুসলিম) [5]

মাসআলা-৪৭  : স্বামীর প্রতি অত্যন্ত ভালবাসা পরায়ন স্ত্রী আদর্শ জীবন সাথী :

আনাস(রাযিয়াল্লাহু আনহু)নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) থেকে বর্ণনা করেছেন, তিনি বলেছেনঃ ভালবাসা পরায়ন ও অধিক সন্তান প্রসবকারিনী নারীদেরকে বিয়ে কর, কেননা আমি কিয়ামতের দিন অন্যান্য নবীদের তুলনায় তোমাদের আধিক্য নিয়ে গৌরব করব। (আহমাদ, ত্বাবারানী) [6]

মাসআলা-৪৮ : পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায়কারিনী, রামাযান মাসে রোযা আদায় কারিনী, নিজের সভ্রম রক্ষা কারিনী, স্বামী ভক্ত নারী আদর্শ জীবন সঙ্গিনী :

আবু হুরাইরা (রাযিয়াল্লাহু আনহু)থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)বলেছেনঃ নারী যদি পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করে, রামাযানের রোযা রাখে, তাঁর লজ্জাস্থান সংরক্ষণ করে,স্বামীরর ভক্ত থাকে, তাহলে তাকে বলা হবে তুমি জান্নাতের যে দরজা দিয়ে খুশি সেই দরজা দিয়ে জান্নাতে প্রবেশ কর।” (ইবনু হিব্বান) [7]

মাসআলা-৪৯ : স্বামীকে সুখে রাখে, স্বামী ভক্ত এবং স্বীয় জান ও মাল স্বামীর জন্য ব্যয় কারিনী নারী আদর্শ জীবন সঙ্গিনী :

আবু হুরাইরা (রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কে জিজ্ঞেস করা হল, ইয়া রাসূলুল্লাহ! উত্তম নারীর পরিচয় কি? তিনি বললেনঃ ঐ নারী যার স্বামী তাঁর প্রতি দৃষ্টিপাত করলে সে আত্মতৃপ্তি অনুভব করে, যখন স্বামী তাকে কোন নির্দেশ দেয় তখন সে তা পালন করে এবং জান ও মালের ব্যাপারে স্বামী যা অপছন্দ করে স্ত্রী তাঁর বিরোধিতা করে না।[8]

মাসআলা-৫০ : প্রতিটি বিষয়ে স্বামীকে পরকালে মুক্তির ব্যাপারে সহযোগিতাকারী মুমেনা নারী আদর্শ জীবন সঙ্গিনী :

সাওবান(রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ সোনা-রূপা সম্পর্কে আয়াত অবতীর্ণ হলে সাহাবাগণ নিজেদের মধ্যে বলতে লাগল, তাহলে আমরা কোন সম্পদ সঞ্চয় করব? ওমার (রাযিয়াল্লাহ আনহু) বললেনঃ আমি এখন তোমাদের জন্য এ প্রশ্নের উত্তর জিজ্ঞেস করব, তখন ওমার (রাযিয়াল্লাহু আনহু) উটে আরোহণ করে দ্রুত চলে নবী (সাঃ) এর নিকট উপস্থিত হল, আমি (সাওবান) ওমার (রাযিয়াল্লাহু আনহু) এর পিছনে পিছনেই ছিলাম, ওমার (রাযিয়াল্লাহু আনহু) জিজ্ঞেস করলেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! আমরা কোন সম্পদ সঞ্চয় করব? তিনি বললেনঃ তোমাদের প্রত্যেকের কৃতজ্ঞতাপূর্ণ অন্তর, আল্লাহর যিকিরে শিক্ত জবান, ঈমানদার স্ত্রী যে তাঁর স্বামীকে পরকালের ব্যাপারে সহযোগিতা করে, (এ ধরণের) সম্পদ সঞ্চয় করার চেষ্টা করা উচিৎ।” (ইবনু মাযা) [9]

মাসআলা-৫১ : আদর্শ স্ত্রী হওয়ার জন্য চার জন অনুসরণীয় আদর্শ নারীর দৃষ্টান্ত :

আনাস (রাযিয়াল্লাহু আনহু) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ নারী চার জন, মারইয়াম বিনতু ইমরান, খাদীজা বিনতু খুওয়াইলেদ, ফাতেমা বিনতু মোহাম্মদ, ফেরাউনের স্ত্রী আসিয়া”। [10] আরো পড়ুন

আগের পোস্ট দেখুন

আপনি পড়ছেন : ত্বালাকের মাসায়েল

 


[1] -আলবানী লিখিত সহীহ সুনান ইবনু মাযা। খণ্ডঃ ১,  হাদীস নং-১৫০৮।

[2] -আলবানী লিখিত মিশকাতুল মাসাবিহ, খন্ডঃ ২, হাদীস নং-৩০৮৮।

[3] -আলবানী লিখিত সহীহ আল জামে আস সাগীর, ওয়া যিয়াদাতুহু, খঃ ৩, হাদীস নং-৩২৯৪।

[4] -কিতাবুল ফাযায়েল্ল, বাব ফি নিসায়ি কোরাইশ।

[5] -কিতাবুননিকাহ, বাব তাহরিম ইমতেনাউহা মিন ফিরাসে যাওজিহা।

[6] -আলবানী লিখিত আদাবুযযুফাফ, পৃষ্টা-৮৯।

[7] -আলবানি লিখিত সহীহ আলা জামে আস সাগীর ওয়া যিয়াদাতুহু, খঃ ১, হাদীস নং-৬৭৩

[8] আলবানী লিখিত সহীহ সুনান নাসায়ী। খঃ ২, হাদীস নং-৩০৩০।

[9] -আলবানী লিখিত সহীহ সুনান ইবনু মাযা। খঃ ১, হাদীস নং-১৫০৫।

[10] -আলবানী লিখিত সহীহ আলা জামে আস সাগীর ওয়া যিয়াদাতুহু, খঃ ৩, হাদীস নং-৩৩২৩।

About Syed Rubel

Creative Writer/Editor And CEO At Amar Bangla Post. most populer bloger of bangladesh. Amar Bangla Post bangla blog site was created in 2014 and Start social blogging.

Check Also

বিবাহের পর শাড়ী সেলোয়ার-কামিজ পড়া প্রসঙ্গ

প্রশ্নঃ আমাদের এলাকাতে মেয়েরা বিবাহের পর আর সেলোয়ার কামিজ পরে না। প্রত্যেকে শাড়ী পরে। বিবাহের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: