যে কোন যৌন বা স্বাস্থ্য সমস্যায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ডা.মনিরুজ্জামান এম.ডি স্যার। কল করুন- 01707-330660

81954_s1বিসিবি লাল ও সবুজ দলে বিভক্ত হয়ে মাঠে টি-টোয়েন্টি লড়াই করলেন মাশরাফি-মুশকিকরা। ব্যাটে-বলে তামিম-সাকিবদের দুর্দান্ত লড়াই। মিরপুর শেরেবাংলা মাঠের গ্যালারিতে দর্শক ও সংবাদকর্মীদের ভিড়। গ্যালারিতে বসে আছেন তিন নির্বাচক ফারুক আহমেদ, মিনহাজুল আবেদিন ও হাবিবুল বাশার সুমন। কড়া নজর ক্রিকেটারদের দিকে কেউ উইকেট নিলে, কেউ ব্যাটে দারুণ কোন শট হাঁকালে চিৎকার করে হাততালি দিয়ে নির্বাচকরা সমর্থন জানাচ্ছেন। এ ম্যাচের আড়ালে অন্য একটি প্রস্তুতিও নিয়ে রাখছেন নির্বাচকরা। তাহলো প্রোটিয়াদের বিপক্ষে শুধু টি-২০ই নয়, ওয়ানডে ও টেস্ট দল কেমন হবে? পেসার বেশি নিয়ে খেলবেন নাকি স্পিনার? প্রধান নির্বাচকের ভাষায় ‘যেমন অপজিশন তেমনি কন্ডিশন।’ সোহাগ গাজীকেও দেখা গেলো বল করতে। তাহলে ফিরছেন কি গাজী? নাকি পরীক্ষা করছেন নির্বাচকরা? অবশ্য এরই মধ্যে প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ জানালেন প্রোটিয়াদের বিপক্ষে টি-২০ ম্যাচের জন্য দল তারা বোর্ডকে দিয়ে দিয়েছেন। আর প্রতিপক্ষের শক্তি ও দুর্বলতা বিবেচনা করে সেখানে রাখা হয়েছে স্পিনারদের আধিক্য। তবে দল প্রকাশ করবে বিসিবি। 
প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘আসলে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তো স্পিনার দিয়েই খেলানো উচিত। কারণ ওরা যে কন্ডিশনে খেলে সেটি বিবেচনা করলে আমাদের স্পিন শক্তিই বাড়ানো উচিত।’ সেই হিসেবে সোহাগ গাজী তাহলে দলে ফিরছেন এমনটাই ইঙ্গিত দিলেন প্রধান নির্বাচক। তবে সেটি টেস্ট নাকি ওয়ানডে-তে তা স্পষ্ট করলেন না। ধারণা করা হচ্ছে টেস্টে বোলিং শক্তিটা বাড়াতেই সোহাগ থাকতে পারেন। টি-টোয়েন্টি দল কেমন হতে পারে তা বললেও প্রধান নির্বাচক সবার নাম বলতে চাইলেন না।
দুপুর ১টায় শুরু হওয়া ম্যাচে জয় পেয়েছে সাকিব আল হাসানের সবুজ দল। প্রথমে ব্যাট করে মাশরাফির লাল দল ৯ উইকেটে ১৩৬ রান করেছে। নাসির হোসেন ৪৩ বলে অপরাজিত ৫৭ রান করেন। ইমরুল কায়েস ২৪ বলে ৩৪, মাশরাফি ১৪ ও রনি তালুকদার ১১ রান করেন। সবুজ দলের তাইজুল ৩টি, সাকিব ২টি, জুবায়ের-মুস্তাফিজ ১টি করে উইকেট পান। ১৩৭ রানের টার্গেটটা সবুজ দল পাড়ি দিয়েছিল প্রায় ৮ ওভার আগেই। তাই সবুজ দলকে নতুন টার্গেট দেয়া হয় ২০ ওভারে ১৯৬ রান। সেই টার্গেট অবশ্য সাকিবের দল আর পাড়ি দিতে পারেনি। ১৮৯ রান তুলতে সমর্থ হয় সবুজ দল। আর তাই ম্যাচ শেষে মাশরাফি প্রধান কোচকে বলছিলেন জয়-পরাজয় সমান সমান। 
সবুজ দলের ব্যাটিং উপস্থিত দর্শককে বেশ আনন্দই দিয়েছে। তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয়ের ব্যাটে ৬ ওভারেই ৯২ রান তুলেছিল সবুজ দল। ঝড়ো ব্যাটিং করেছেন দুজনই। মাশরাফি-আরাফাত সানি-নাসিরদের বিরুদ্ধে আউট হওয়ার আগে তিনি ৩০ বলে ৫২ রান করেছেন তামিম। বিজয় ৩২ বলে ৪৮, সাকিব ২২ বলে ৪৩ ও আবুল হাসান রাজু ১৬ বলে ২০ রান করেন। লাল দলের সাব্বির ২টি, সোহাগ গাজী-আরাফাত সানি-নাসির-শফিউল ১টি করে উইকেট নেন।-মানব জমিন

Syed Rubelখেলাধুলাবিসিবি লাল ও সবুজ দলে বিভক্ত হয়ে মাঠে টি-টোয়েন্টি লড়াই করলেন মাশরাফি-মুশকিকরা। ব্যাটে-বলে তামিম-সাকিবদের দুর্দান্ত লড়াই। মিরপুর শেরেবাংলা মাঠের গ্যালারিতে দর্শক ও সংবাদকর্মীদের ভিড়। গ্যালারিতে বসে আছেন তিন নির্বাচক ফারুক আহমেদ, মিনহাজুল আবেদিন ও হাবিবুল বাশার সুমন। কড়া নজর ক্রিকেটারদের দিকে কেউ উইকেট নিলে, কেউ ব্যাটে দারুণ কোন শট...Amar Bangla Post