Home / বাংলা লাইফ স্টাইল / অন্যের নাম মনে রাখুন
নাম মনে রাখার উপায়

অন্যের নাম মনে রাখুন

কারো নাম স্মরণ রাখা তাঁর প্রতি আপনার গুরুত্বের পরিচায়ক। কারও সঙ্গে আপনার ব্যাংক, বিমানে কিংবা বিয়ের কোনো অনুষ্ঠানে পরিচয় হলো। তাঁর নাম ঠিকানা আপনি জেনে নিলেন। পরবর্তীতে অন্য কোথাও তাঁর সঙ্গে আবার সাক্ষাৎ হলো। আপনি যদি তাঁর দিকে এগিয়ে যান আর তাঁর নাম ধরে ডেকে তাঁকে স্বাগত জানান তাহলে এটা অবশ্যই চমৎকার একটি কাজ হবে। আপনার এ আচরণে সে মুগ্ধ হবে, তাঁর অন্তরে আপনার প্রতি ভালবাসা ও সম্মানবোধ সৃষ্টি হবে।

আপনি কারো নাম মনে রাখলে তাঁর মনে এ ধারণা অবশ্যই জন্মাবে যে, আপনি তাঁকে মূল্যায়ন করেন। একজন শিক্ষক ছাত্রদের নাম মুখস্থ রাখেন অন্যজন মুখস্থ রাখেন না এমন দুই শিক্ষকের মাঝে পার্থক্য রয়েছে। প্রথমজনের প্রতি ছাত্রদের আন্তরিকতা অবশ্যই বেশি থাকবে। ছাত্রকে ‘হে ছাত্র। দাঁড়াও’ না বলে ‘হে অমুক! (নাম বলে) দাঁড়াও’ বলে সম্বোধন করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

মোবাইল কল রিসিভ করার ক্ষেত্রেও নাম ধরে সম্বোধন করবেন। আপনি যার কাছে কল করেছেন তিনি ফোন রিসিভ করে বললেন, ‘কে?’ কিংবা বললেন, ‘হ্যালো! অন্য একজন রিসিভ করেই হাসিমুখে বললেন, ‘হে খালেদ! তোমাকে স্বাগতম’ অথবা বললেন, হ্যালো, আব্দুল্লাহর আব্বু………।

বলুন, কোনটি আপনার কাছে বেশি ভাল লাগবে? নিশ্চয় তাঁর মুখে আপনার নামের শব্দটি আপনার কানে পৌঁছার আগে আপনার অন্তরে তাঁর মুগ্ধতার আবেশ ছড়িয়ে দেবে।

সাধারণত সভা-সেমিনারে আলোচনা করার পর তরুণরা আমাকে ধন্যবাদ জানাতে এবং করমর্দন করতে ভীড় জমায়। আমি তাঁদেরকে সব সময় বলে থাকি, ‘আল্লাহ আপনাকে দীর্ঘজীবী করুণ!’ ভাই! আপনার নামটা কি জানতে পারি?’ তাঁদের প্রতি আমার এই গুরুত্ব প্রকাশের কারণে তাঁরা অনেক খুশি হয়।

একবার কুশল বিনিময়ের পর সবাই বিদায় নিল। তাঁদের একজন কী জন্য যেন আবার এলে আমি তাঁকে বললাম, খালেদ! আবার এলে কেন? সে অবাক হয়ে বললো, মাশাআল্লাহ! আপনি আমার নাম মনে রেখেছেন!

সেনা কর্মকর্তাদের ইউনিফর্মে বুকের ওপর ব্যাজ থাকে। তাতে তাঁদের নাম লেখা থাকে। আমি একবার এক সেনানিবাসে বয়ান করেছিলাম। বয়ানের পর অনেকেই আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন। একজন অফিসারকে দেখে মনে হলো, তিনি আমার সাথে দেখা করতে চাচ্ছেন। কিন্তি ভীড়ের কারণে পারছিলেন না।

আমি তাঁর ব্যাজের ওপর নজর দিয়ে তাঁর নাম দেখে নিলাম। এরপর তাঁর দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়ে বললাম, ‘স্বাগতম হে অমুক!’ আমার কথা শোনার সাথে সাথে খুশিতে তাঁর চেহারা উজ্জ্বল হয়ে গেল। আশ্চর্য হয়ে সে মুসাফাহার জন্য তাঁর হাত বাড়িয়ে হাসিমুখে বললো, ‘আশ্চর্য! আপনি আমার নাম জানলেন কী করে?।

আমি বললাম, ‘ভাই! যাদেরকে আমরা ভালবাসি, তাঁদের নাম তো অবশ্যই জানতে হবে। আমার এ আচরণ তাঁর উপর বিরাট প্রভাব ফেলেছে। অনেকেই এমন আছেন যে, তাঁর নাম অন্য কেউ মনে রাখলে খুশি হয় এবং মনে মনে কামনা করে, ‘যদি আমিও অন্যদের নাম মনে রাখতে পারতাম!’

অন্যের নাম মনে রাখতে না পারার পেছনে অনেক কারণ থাকে। বড় একটি কারণ হলো, কারো সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তাঁকে গুরুত্ব না দেয়া। আরেকটি হলো, কারও সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সময় অন্যমনস্ক থাকা কিংবা নাম শোনার সাথে সাথে তা মনে না গাথা।

তাছাড়া সাক্ষাতকারীর প্রতি আপনার দৃষ্টিভঙ্গিও এ ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। আপনি হয়তো মনে করেন, তাঁর সঙ্গে আপনার আর কোনোদিন সাক্ষাৎ হবে  না। তাই তাঁর নাম মনে রাখার প্রয়োজন বোধ করেন না। কিংবা সাক্ষাতকারী হয়তো সাধারণ মানুষ। তাই তাঁর প্রতি গুরুত্ব দেয়ার আগ্রহ নেই। অথবা যখন সে নাম বলেছিল তখন আপনি তাঁর নাম মনোযোগ দিয়ে শোনেন নি, এখন নতুন করে জিজ্ঞেস করতে সঙ্কোচবোধ করছেন। এসব কারণে অন্যদের নাম মনে থাকে না।

নাম মনে রাখার বিভিন্ন কৌশল আছে। একটি হলো, কারো নাম শোনার সময় এ কথা ভাবা যে, কয়েক মিনিট পর আমাকে নামটি জিজ্ঞেস করা হবে। আরেকটি হলো, কারও নাম শোনার সময় তাঁর চেহারার প্রতি মনোযোগ নিবদ্ধ করা।

কারও সঙ্গে কথা বলার সময় আপনি তাঁর অবয়ব, কথা বলার ভঙ্গি ও হাসার ধরণ ভালভাবে লক্ষ্য করবেন। যেন তা আপনার স্মৃতিপটে গেঁথে যায়। কথার ফাঁকে ফাঁকে বারবার তাকে নাম ধরে ডাকুন। এভাবে বলুন, ‘হে অমুক! ঠিক বলেছেন। হে অমুক! আপনি এটা শুনেছেন? হে অমুক! আপনি কি আমার সঙ্গে একমত? এভাবে বারবার বলুন।

কাউকে নাম ধরে ডাকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কুরআনে দেখুন, আল্লাহ তায়ালা নবীদেরকে তাঁদের নাম ধরেই সম্বোধন করেছেন—

‘হে ইবরাহীম! তুমি এটা থেকে বিমুখ থাক!’

‘হে নূহ! সে তোমার পরিজনভক্ত নয়’

‘হে দাউদ! আমি তো তোমাকে পৃথিবীতে আমার প্রতিনিধি বানিয়েছি’।

সারকথা…

আমার নাম মনে রেখে, নামসহ সম্বোধন করে আমার প্রতি আপনার গুরুত্ব ও ভালবাসা প্রকাশ করুণ। আমি অবশ্যই আপনাকে হৃদয়ে স্থান দেব।

সূত্রঃ ইনজয় লাইফ বই থেকে। 

এই লাইফস্টাইল টিপসকে আপনি একটি রেটিং দিন

0%

প্রিয় পাঠক-পাঠিকা, আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কাছে কেমন লেগেছে তার উপর ভিত্তি করে আপনি একটি রেটিং প্রদান করুন। আপনার রেটিং প্রদান করতে নিচের পাঁচটি তারা থেকে আপনার মান নির্ণয় তারাতে ক্লিক করুন। সর্বোচ্চ রেটিং দিতে পঞ্চম তারাতে ক্লিক করুন।

লাইফস্টাইল থেকে আরো পড়ুন
User Rating: 3.93 ( 3 votes)

About Syed Rubel

Creative Writer/Editor And CEO At Amar Bangla Post. most populer bloger of bangladesh. Amar Bangla Post bangla blog site was created in 2014 and Start social blogging.

Check Also

প্রিয় হবার উপায়

আপনার প্রিয়তম ব্যক্তি কে?

আচার-আচরণে ও কথাবার্তায় প্রত্যেককে যদি এ কথা অনুভব করাতে পারেন যে, সে আপনার সবচেয়ে প্রিয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *