যে কোন যৌন বা স্বাস্থ্য সমস্যায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ডা.মনিরুজ্জামান এম.ডি স্যার। কল করুন- 01707-330660

ইস্তিহাযা সম্পর্কে গোপনীয় মাসআলাঃ

মুসলিম মেয়েদের নামায পড়ার দৃশ্য

মাসআলাঃ-৯৪. হায়েযের দিন গুলোর মধ্যে কোন মহিলার রক্ত তিন দিনের কম প্রবাহিত হয়ে ১৫ দিন বন্ধ থাকলে প্রথমোক্ত রক্ত ইস্তিহাযা। অনুরূপভাবে তা ১০ দিনের চেয়ে বেশি আসলেও এ দশ দিনের রক্ত ইস্তিহাযা।

ইস্তিহাযা অবস্থায় ইবাদত-বন্দেগীঃ

মাসআলাঃ-৯৫. ইস্তিহাযা অবস্থায় সমস্ত ইবাদত করাই সহীহ আছে। নামাযও মাফ নেই। যদি লাগাতর রক্ত আসতে থাকে তাহলে প্রত্যেক ফরয নামাযের ওয়াক্তে নতুন অযু করে নামায পড়তে থাকবে।

মাসআলাঃ-৯৬. রক্ত আসার কারণে কাপড় নাপাক হয়ে গেলে নামাযের জন্য পৃথক কাপড় রাখবে এবং নামায শেষ করে উহা খুলে ফেলবে।

মাসআলাঃ-৯৭. নামায পড়া অবস্থায় কাপড় নাপাক হয়ে গেলে কোন ক্ষতি নেই। নামায হয়ে যাবে। কিন্তু অন্য ওয়াক্তের নামাযের জন্য উক্ত কাপড় ধৌত করা জরুরী। (প্রতি ওয়াক্তের নামাযের জন্য এরূপ করবে)।

মাসআলাঃ-৯৮. শরীরের হুকুম কাপড়ের হুকুমের অনুরূপ। তবে নামাযের সময় শরীর অপবিত্র হয়ে গেলে পরে শরীর ধৌত করবে।

ইস্তিহাযা অবস্থায় রোযাঃ

মাসআলাঃ-৯৯. অনুরূপভাবে ইস্তিহাযা অবস্থায় রোযা রাখা জরুরী। হজ্জ ও ওমরার সমস্ত কার্যাবলী যেমন, তওয়াফ, সায়ী ইত্যাদি করায় কোন অসুবিধা নেই তেমনি মসজিদে যাওয়া, ইতেকাফ করা, কুরআন শরীর তেলাওয়াত করা এবং স্পর্শ করাও জায়েয।

মোটকথা হলো শরীয়তের হুকুম আহকাম আদায় করার ক্ষেত্রে মুস্তাহাযা এবং পাক মহিলার মধ্যে কোন পার্থক্য নেই।

মাসআলাঃ-১০০. অনুরূপভাবে যদি দাঁড়িয়ে নামায পড়ার সময় রক্ত আসে আর বসে পড়ার সময় না আসে তবে বসে নামায পড়া জরুরী।

ইস্তিহাযা অবস্থায় মসজিদে যাওয়াঃ

মাসআলাঃ-১০১. শুধুমাত্র পরিদর্শনের উদ্দেশ্যে শানদার মসজিদে যাওয়া কোন ভাল বিষয় নয়। তাছাড়া মহিলাগণ তাদের পাক-নাপাকির প্রতি খেয়াল না রেখে মসজিদের মধ্যে ঢুকে পড়ে, এটা খুবই জঘন্য কাজ। এ কারণে পবিত্রতার প্রতি লক্ষ্য রাখা অবশ্যই জরুরী।

ইস্তিহাযা অবস্থায় স্বামীর খেদমতঃ

মাসআলাঃ-১০২. ইস্তিহাযা অবস্থায় মহিলাদের রক্ত চালু থাকলেও শরীয়ত অনুযায়ী যখন তাকে পাক হিসেবে গণয় করা হবে, তখন পুরুষের জন্য (এ অবস্থায়ও) সহবাস করা জায়েয আছে, এতে কোন কোন ক্ষতি বা গোনাহ নেই।

আপনি পড়ছেনঃ নারীর শ্রেষ্ঠ উপহার বই থেকে।

বিষয়ঃ মেয়েদের অতি গোপনীয় ১১৩ টি মাসআলা

Syed Rubelপরামর্শ মূলক নিবন্ধনমাসআলা মাসায়েলইস্তিহাযা সম্পর্কে গোপনীয় মাসআলাঃ মাসআলাঃ-৯৪. হায়েযের দিন গুলোর মধ্যে কোন মহিলার রক্ত তিন দিনের কম প্রবাহিত হয়ে ১৫ দিন বন্ধ থাকলে প্রথমোক্ত রক্ত ইস্তিহাযা। অনুরূপভাবে তা ১০ দিনের চেয়ে বেশি আসলেও এ দশ দিনের রক্ত ইস্তিহাযা। ইস্তিহাযা অবস্থায় ইবাদত-বন্দেগীঃ মাসআলাঃ-৯৫. ইস্তিহাযা অবস্থায় সমস্ত ইবাদত করাই সহীহ আছে। নামাযও মাফ নেই। যদি...Amar Bangla Post