যে কোন যৌন বা স্বাস্থ্য সমস্যায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ডা.মনিরুজ্জামান এম.ডি স্যার। কল করুন- 01707-330660

লুত আলাইহিস সাল্লাম—এর জাতির এটাই ছিল জঘন্য পাপ যে, তারা পুরুষ মানুষের সাথে তাঁর পায়ুপথে কুকর্ম করত। মহান আল্লাহ বলেন,

“আর প্রেরণ করেছি লুতকে। যখন তিনি তাঁর সম্প্রদায়কে বললেন, তোমরা এমন অশ্লীল কাজ করছো, যা তোমাদের পূর্বে পৃথিবীর কেউ করে নি। তোমরা কি পুংমৈথুনে লিপ্ত আছো, রাহাজানি করছো এবং নিজেদের মজলিসে গর্হিত কর্ম করছো? জবাবে তাঁর সম্প্রদায় কেবল এ কথা বলল, আমাদের উপর আল্লাহর আযাব আনো, যদি তুমি সত্যবাদী হও” (সূরা আন কাবুতঃ ২৯)

তাদের এই কাজ অতীব জঘন্য, নিকৃষ্ট এবং বিপজ্জনক হওয়ার কারণে আল্লাহ চার প্রকারের আযাব প্রেরণ ক’রে তাদেরকে শায়েশ্তা করেছেন। অথচ একত্রে চার প্রকারের আযাব এদের পূর্বে কোন জাতির উপর প্রেরণ করা হয়নি। আর এই আযাব হল, আল্লাহ তাদের দৃষ্টিশক্তি বিলুপ্ত করে দেন। তাদের জনপদের উপরকে নীচে করে দেন। তাদের উপর স্তরে স্তরে কাঁকর-পাথর বর্ষণ করেন এবং তাদের উপর প্রেরিণ করেন বিকট শব্দ।

ইসলামের সঠিক মতানুযায়ী এই কাজে লিপ্ত ব্যক্তির শাস্তি হল, কর্তা ও যার সাথে করা হয় উভয়কেই হত্যা করা, যদিও তাদের উভয়ের সন্তুষ্টিতে এই কাজ হয়। ইবনে আব্বাস (রা) থেকে মার্ফু সূত্রে বর্ণিত যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওসাল্লাম বলেছেন,

“যাকে লুত সম্প্রদায়ের মত কুকর্মে লিপ্ত পাবে তাঁকে এবং যার সাথে এ কাজ হবে তাকেও তোমরা হত্যা করে ফেলো।” (আহমদ)

এই জঘন্য কাজের কারণেই বর্তমানে মহামারী ও এমন বিভিন্ন প্রকারের ব্যাধির জম্ম হচ্ছে, যা আমাদের পূর্ব পুরুষদের যুগে ছিল না। যেমন, এইডস এর মত মারাত্মক ব্যাধি। তাই বিধানদাতা এই কু—কর্মের যে শাস্তি নির্দিষ্ট করেছেন, তাঁর কৌশলগত দিকও প্রমাণিত হয়।

আপনি পড়ছেনঃ কতিপয় হারাম বস্তু, যা অনেকে নগণ্য ভাবে বই থেকে

Syed Rubelঅন্যান্যলুত আলাইহিস সাল্লাম—এর জাতির এটাই ছিল জঘন্য পাপ যে, তারা পুরুষ মানুষের সাথে তাঁর পায়ুপথে কুকর্ম করত। মহান আল্লাহ বলেন, “আর প্রেরণ করেছি লুতকে। যখন তিনি তাঁর সম্প্রদায়কে বললেন, তোমরা এমন অশ্লীল কাজ করছো, যা তোমাদের পূর্বে পৃথিবীর কেউ করে নি। তোমরা কি পুংমৈথুনে লিপ্ত আছো, রাহাজানি করছো এবং নিজেদের...Amar Bangla Post