Home / World Blog / বাংলা ব্লগ / মশা তাড়ানোর সহজ উপায়! এবার মশা পালাবেই
মশা তাড়ানোর সহজ উপায়

মশা তাড়ানোর সহজ উপায়! এবার মশা পালাবেই

বাংলাদেশে মশার  প্রকোপ বাড়ছে। বাড়ছে মশাবাহি রোগের সংখ্যা। বাংলাদেশে এখন আলোচিত রোগের নাম হচ্ছে চিকনগুনিয়া। ইতিমধ্যে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে বেশ কয়েকজন। চিকনগুনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে কষ্টে দিন যাপন করে যাচ্ছে দেশের শত শত রোগী। 

শুনেছি মেয়র আনিসুল হক #মশা মারার দায়িত্ব জনগনের কাঁধে তুলে দিয়েছেন। চিকুনগুনিয়ার সাথে সাথে এখন নতুন করে নাকি আবার ডেঙ্গু শুরু হয়েছে। শরীর স্বাস্থ্য আমাদের, তাই দায়িত্ব নিতে আমাদের আপত্তি নাই। আমি মশা নিধন আর তাড়ানোর জন্য ১৫টি পয়েন্ট দিলাম। এসব পয়েন্টের কিছু আপনাদের জানা আর মানা, আর কিছু হয়ত অজানা।

১) স্থিতিশীল এবং জমানো পানিতে মশা ডিম পেড়ে বংশবিস্তার করে। বাসার আসে পাশে কোন পানি জমতে দিবেন না। বাড়ির সবাইকে নিয়ে বাড়ির আর পাড়া প্রতিবেশিদের নিয়ে পাড়ার চারিদিকের জমানো পানি সরিয়ে ফেলুন। প্রতিদিন খেয়াল রাখুন পানি জমেছে কিনা। জমলেই পানি সরিয়ে জায়গা শুখিয়ে ফেলুন।

২) অবশ্যই মশারীর নীচে ঘুমাবেন। কয়েলের কার্যকারিতা মাত্র কয়েক ঘন্টার জন্য থাকে। তাই অবশ্যই মশারীর নীচে ঘুমাবেন।

৩) মশার প্রবেশে প্রতিরোধের জন্য আপনার বাড়ির সমস্ত দরজা এবং জানালা বন্ধ রাখুন। জানালায় পারলে নেট লাগিয়ে নেন, তাহলে জানালা খোলা রাখতে পারবেন। তবে সাবধান, নেটে যেন কোন ফুটো না থাকে।

৪) যখনই আপনি আপনার চারপাশের মশা উড়তে দেখবেন, তখনই অবিলম্বে তাদের হত্যা করুন। এটি আপনার আশেপাশে তুলনামূলকভাবে মশা কমিয়ে ফেলবে।

৫) মশা লাইটের আলোতে আকৃষ্ট হয়। So use mosquito-repellent lights such as sodium lamps, yellow bug lights or LED lights in your house। মার্কেটে, বিশেষত যেখানে বিদেশি জিনিস বিক্রি হয় সেখানে খোজ নিয়ে দেখুন এসব পাওয়া যায় কিনা।

৬) প্রতিদিন বেশী করে রসুন খান। ভর্তা ভাঁজিতে বেশী বেশী রসুন ব্যবহার করুন। তবে এতে পেটে গ্যাস হওয়ার সম্ভবনা আছে, এবং গায়ে গন্ধ। তাতে কি? আগে মশার কামড় আর তার থেকে রোগের হাত থেকে বাচুন। মশার কামড় থেকে বাচতে দৈনিক রসুন খান। অথবা গায়ের চামড়ায় রসুন ঘষুন।

৭) কয়েকটি রসুনের কোয়াকে থেঁতলে পানিতে সিদ্ধ করুন। এরপর সেই সিদ্ধপানি ঘরের চারিদিকে ছিটিয়ে দিন। মশা পালিয়ে যাবে অথবা মরে যাবে।

৮) সন্ধ্যা হওয়ার আগেই ঘরের সব দরজা জানালা বন্ধ করে দিন। তারপর আধা ঘন্টার জন্য ঘরে কর্পূর জ্বালান। এতে করে মশা পালিয়ে অথবা মরে যাবে। অথবা একটি পাত্রে কর্পূর ট্যাবলেট ক্রাশ করে পানিতে গুলিয়ে ঘরের এক কোনে রেখে দিন। প্রতি দুই দিন অন্তর অন্তর নতুন করে কর্পূর মেশানো পানি এই পদ্ধতিতে ব্যবহার করুন। কর্পূর মেশানো পানি দিয়ে ঘরের মেঝেও মুছে নিতে পারেন। মশা তাড়াবার এটা একটা খুব ভালো আর এফেক্টিভ পদ্ধতি।

৯) দেশে যদি সাইট্রোনেলা তেল পাওয়া যায়? এটা সবচেয়ে ভালো মশক নিধক। এই তেল জ্বালালে বা গায়ে মাখলে মশা বাপ বাপ বলে পালিয়ে যায়।

১০) ১ আউন্স সাইটোনেলা তেল+ ১ আউন্স কর্পূর+১ আউন্স সিডার (দারুবৃক্ষ) তেল মিক্স করে, তার কয়েক ফোটা একটি কাপড়ে মিশিয়ে মশারীর উপর রাখুন। মশক বলবে বাই বাই।

১১) মশা পুদিনার গন্ধ অত্যন্ত অপছন্দ করে। বাসার আশে পাশে পুদিনার গাছ লাগান। গায়ে পুদিনার রস লাগান। মুখে নিয়ে পুদিনা চাবান।

১২) তুলসি গাছ মশা তাড়াতে খুব কাজের। ঘরের প্রবেশ মুখে, দরজা জানালার কাছে তুলসি গাছ লাগান।

১৩) অনেক ফিল্ড স্টাডিতে দেখা গেছে সরিষার তেল, নারিকেল তেল মশার অত্যন্ত অপছন্দ। তাই এসব রান্নায় ব্যবহার আর সাথে গায়ে মেখে দেখুন। মশা সহজে কাছে ঘেঁষবে না। নিমের তেলর গন্ধও মশার অপছন্দ। তাও গায়ে মাখতে পারেন। তবে সাবধানে ব্যবহার করবেন যাতে চামড়ায় আবার কোন ক্ষতি না হয়। সেইজন্য আগে অল্প পরিমানে ব্যবহার করে দেখে নিবেন আপনার এসব তেলের ব্যবহারে এলার্জি আছে কিনা।

১৪) যতদূর পারবেন গা ঢেকে জামা কাপড় পড়বেন। ডার্ক কালারের কাপড় পড়বেন না। যেমন লাল, নিল, কালো সবুজ। এসব কালার তাপ শোষণ করে শরীরকে গরম করে ফেলে, আর মশা গরম শরীরে আকৃষ্ট হয়।

১৫) পারফিউম ব্যবহার করবেন না। পারফিউমের গন্ধের সাথে শরীরের গন্ধ মিশে যেই গন্ধ হয়, মশা তাতে আকৃষ্ট হয়।

লেখকঃ সাবিনা আহমেদ

স্বাস্থ্য সচেতনতায় আপনিও ভূমিকা রাখুন। এই লেখাটি আপনার বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনদেরকে পড়াতে এটি ফেসবুক  সহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করুণ। শেয়ার করার বাটন নিচে দেওয়া আছে।

About Syed Rubel

Creative Writer/Editor And CEO At Amar Bangla Post. most populer bloger of bangladesh. Amar Bangla Post bangla blog site was created in 2014 and Start social blogging.

Check Also

চলন্ত বাসে ধর্ষণ

চলন্ত বাসর (চলন্ত বাসে ধর্ষিত হওয়া থেকে যেভাবে রক্ষা পেলো তরুণী)

রাত ৮:৩০ গলফ ক্লাবের সামনে থেকে মিরপুরের উদ্দেশ্যে বাসে উঠলাম আমরা তিন বন্ধু।আঃ রহমান, সাজিদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *