Home / বাংলা সাহিত্য / কিছু গল্প / বউয়ের বুদ্ধিতে চলার বিপদ (হাসির গল্প)
হাসির গল্প

বউয়ের বুদ্ধিতে চলার বিপদ (হাসির গল্প)

খ্রিষ্টান বাদশা পারভেজ খসরুর রাজ দরবারে একদিন এক জেলে একটি বড়সড় সুন্দর মাছ নিয়ে গেল। বাদশা মাছটি দেখে খুব খুশি হল কারণ মাছ তাঁর খুব প্রিয় খাবার ছিল। এজন্য বাদশা খুশি হয়ে জেলেকে ৪০০ দেরহাম দিয়ে দিল। এদিকে পাশেই বসে থাকা রাণী ফিসফিস করে বাদশাহকে বলল, এই সামান্য টাকার মাছ টার দাম তুমি ৪০০ দিরহাম দিয়ে দিলে! বড়জোর খুশি হয়ে তাকে ৮০ থেকে ১০০ টাকা দিতে পার। মাছ ফেরত নিয়ে টাকা দিতে বল।
..বাদশা বলল, একি বল রাণী! বাদশারা যা বলে তা নড়চড় করা বাদশাহের শানের খেলাফ, ইজ্জতের কমতি। রাণী বলল, আমি এমন একটা বুদ্ধি দিতেছে যা প্রয়োগ করলে তোমার শানেরও খেলাফ হবেনা, জেলে মাছ নিয়ে টাকাও ফেরত দিবে। 
..বাদশা বলল কি বুদ্ধি? 
..রাণী বলল, জেলেকে ডেকে বলবে তোমার মাছটাকি পূরুষ না স্ত্রী, যদি জেলে বলে মাছ পুরুষ তাহলে তুমি বলবে আমার স্ত্রী মাছ লাগবে আর যদি জেলে বলে মাছ স্ত্রী তাহলে তুমি বলবে আমার পূরুষ মাছ লাগবে। অতএব জাহাপনা জেলে তখন মাছ ফেরত নিতে বাধ্য হবে।
..বাদশাহ রাণীর বুদ্ধিতে খুশি হয়ে জেলেকে ডেকে জিজ্ঞাসা করল, তোমার মাছটা কোন জাতের? পুরুষ না স্ত্রী?
..জেলে থতমত হয়ে একটু ভেবে চিন্তে বলল, জাহাপনা আমার মাছটা পুরুষও না স্ত্রী ও না, আমার মাছটা হলো হিজড়া।
..এবার বাদশাসহ রাজদরবারে হাসির রোল পড়ে গেল, রাণীও শাড়ির আচল দিয়ে মুখ ঢেকে হাসলেন। বাদশাহ জেলের বিচক্ষণতা দেখে খুশি হয়ে আরও ৪০০ দিরহাম দিয়ে দিলেন। জেলে খুশি হয়ে মোট ৮০০ শত দেরহামের পুটলা নিয়ে বের হয়ে যাচ্ছে। রাজ গেইটের সামনে যেতেই পুটলা থেকে ১টি টাকা মাটিতে পড়ে গেছে, জেলে তা তুলে চুমু খাচ্ছে কপালে লাগাচ্ছে আর এদিকে রাণী তা দেখে রাগে ফোঁস ফোঁস করছে।
..জাহাপনা এই জেলে এত লোভী কেন? ৮০০ শত দেরহাম থেকে মাত্র ১টি দেরহাম পড়ে গেছে জেলের তা সহ্য হচ্ছেনা, জাহাপনা! আপনি তাঁকে শাস্তি দেন। বাদশাহও ভাবলো ঠিকই তো মাত্র ১ দেরহাম পড়ে গেছে, গেইট দিয়ে কত গরিব মানুষ আসা যাওয়া করে তারা না হয় কুঁড়িয়ে নিত।
..বাদশাহ জেলেকে ডেকে বলল, এই লোভী জেলে! তোমার এত লোভ কেন? এত টাকা দিয়েছি তোমায়, মাত্র ১ দেরহামের লোভ সামলাতে পারলে না, তা তুলে চুমু খাচ্ছ? তোমাকে কঠিন শাস্তি দেয়া হবে।
..জেলে বলল, জাহাপনা! আমি কিন্তু লোভের কারণে ঐ টাকাটা তুলে চুমু খাইনি। টাকার গায়ে আমার বাদশাহ নামদার ও রাণী মা'র নাম লেখা আছে, ভাবলাম টাকাটা মাটিতে পড়ে থাকলে হয়তো মানুষ পা দিয়ে পিষবে আর আমার জাহাপনা ও রাণী মা'র ইজ্জতের হানি হবে, তাই আমি টাকাটা তুলে চুমু খাইলাম।
..এবার বাদশা খুশি হয়ে জেলেকে আরও ৪০০ মোট ১২০০ দেরহাম দিয়ে বিদায় করল। আর রাজ ঘোষককে বলল, তুমি সমগ্র রাজ্যে ঘোষণা করে দাও কেউ যেন বউয়ের বুদ্ধিতে না চলে। আর এটাও বলে দাও বউয়ের বুদ্ধিতে চললে ১২০০ শত দেরহাম লোকসান হয়!!laughlaugh

About Joynul Hoqe

জয়নুল হক শাহরাজ একজন ইসলামীক ব্যক্তিত্ব ও মুসলিমদের কণ্ঠস্বর। তিনি বাংলা কবিতা ও বিভিন্ন আর্টিকেল লিখে থাকেন।

Check Also

golpo

ফুলশয্যা (স্বামী স্ত্রীর ভালোবাসার গল্প)

বন্ধুদের খোচা খেতে খেতে বাসর ঘরে বীর পুরুষের মত প্রবেশ করেই ফেললাম। প্রবেশ করার পূর্বে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: