Home / শিশুদের জন্য আমরা / শিশুদের কবিতা

শিশুদের কবিতা

bangla kobitaধর্মীয়, দেশ ও প্রাকৃতিক নিয়ে শিশুদের জন্য শিশুতোষ কবিতা। এই কবিতা গুলো খুবই চমৎকার এবং মজাদার। শিশুদেরকে পড়ে শুনালে তাঁরা যেমনি আনন্দিত হবে তেমনিভাবে কবিতার মাধ্যমে তাঁরা শিখতে পারবে সততা ও আদর্শ ও জানতে পারবে নিজের দেশকে।

অচিন পুরে (শিশুদের ইসলামিক কবিতা

ফিরতে হবে অচিন পুরে থাক যতই ভবের ঘরে, লীলার ভূবন ছাড়তে হবে থাকবে পরে অন্ধকারে। নামায রোজা হজ্ব যাকাত, সবি আল্লাহর মতি, নামায রোজা না পড়িলে থাকবে না আর গতি। পাপের নেশা ভুলে তুমি পড় মুমিন কোরআন খানি, কোরআন হল আল্লাহর দাওয়াত নবীর মুখের বাণী। পরকালের সুখ যদি চাও আল্লাহর প্রেমের সেজদা …

Read More »

প্রাণ ( শিশুদের বাংলা কবিতা)

খোকন সোনা চাঁদের কনা বই খোলোরে বই, বর্ণমালা শিখে তুমি দেশকে কর জয়। সত্য পথে চলবে তুমি নৈতিকতা প্রাণ, আল্লাহর হুকুম মানবে তুমি রাইখ তোমার জ্ঞান। সৃষ্টির সবি তোমার জন্য তাহা আল্লাহর দান, আল্লাহর কাজে মনোযোগী হও থাকবে তোমার প্রাণ। লিখেছেনঃ বাছির আহমেদ।  √ আপনার কবিতা,গল্প ও মতামত প্রকাশ করুন। 

Read More »

রংধনু (কবিতা)

মেঘ জমেছে পাহাড় চুড়ায় বৃষ্টি পরে কই, রংধনু আজ করছে মেলা রৌদ্র উঠছে ঐ। তিতাস বাঁকে কাশ বনে ডাউক পাখির ডাক শুনে, ছোটছে সক্ল দামাল ছেলে আর কি দেখা তখন মিলে। তিতাস বুকে ঢেউয়ের ছল নৌকা চলে ছল ছলা ছল, রৌদ্র ছায়ার মিলন মেলা শিয়াল দেখে করছে খেলা। রূপালী রং …

Read More »

গায়ের বধূ (গ্রাম বাংলার কবিতা)

আমার এই সোনার বাংলার রূপ দেখে লীলাতে দু চোখ গেছে ডুবে। জলের স্রোতে নদীর বুকে মাঝি গায় সুরেলা গান ভরে যায় প্রাণ। শালিক দোয়েল গাংচিল ময়না টিয়া প্রকৃতিতে সেজেছে প্রজাপতি কে নিয়া। রাখাল ছেলের ঠোটে বাঁশির সুর সবুজ গালিচার পাটিতে লাগে যে মধুর। গরুর পিঠে চরে শালিক করে কত আনা …

Read More »

হাঁসে (কবিতা)

খুকুর মুখে হাঁসির জোয়ার পাখির ঠোটে গান, ফুলের বনে ফুল ফুটেছে ভ্রমর পরে টান। গাছের ডালে নতুন কুঁড়ি সবুজ শ্যামল ভাসে, তাই দেখিয়া খুকু মনি সকাল দুপুর হাঁসে। পাহাড় চুড়ায় মেঘ জমেছে আঁকাশ চুড়া নীল, খুকুর মনে ময়ূর নাচন হাঁসে যে হিল হিল।   লিখেছেনঃ বাছির আহমেদ।   √ আপনার …

Read More »

পাঠশালার মাঠ

আমার গাঁয়ের পাঠশালার মাঠ দেখতে অনেক বড়, রেন্ডি করই আর শুপারী গাছ এক পাশেতে সরু। পাশ ঘেসে তাঁর বয়ে গেছে তিতাস নদীর রেখা, চাষীর মনে রং লেগেছে অগ্রহায়নের দেখা। আউশ ধানের রং লেগেছে কৃষাণ ভাইয়ের মনে, ঢেঁকির তালে কেতুর কেতুর সরজ দাদুর শুনে। ভর দুপুরে দামাল ছেলে ঘুড়ি উড়ায় মাঠে, …

Read More »

দ্বীনের পথে

আজান হল মসজিদেতে খোকন সোনা কই, দ্বীনের পথে চলবে তুমি থাকবে নাতো ভয়। কুরআন হল আল্লাহর বাণী রাইখ তুমি জানা, অসৎ পথে চলতে তোমার মায়ের মুখে মানা। পাঁচ কালেমার সুতো দিয়া বাঁধবা ঈমান খানি, খোদার হুকুম মানতে হবে ত্রিভূবনের প্রাণী। লিখেছেনঃ বাছির আহমেদ।

Read More »

জোৎসনা

নদীর জলে জোৎসনা দোলে চাঁদ হাঁসে যে ঐ, ছায়ার বাঁকে ঝিঁঝির ডাকে কাজলা দিদি কই। আজকে রাতে চাঁদের সাথে ফুল পরীদের খেলা, ঘুম সরেনা কাজলা দিদির ভেবে হয় উতালা। আলতো মনে তারার বনে স্বপ্ন বাহার মেলা, তাই দেখিয়া কুটুম পাখি হাঁসে যে একেলা। জোনাকিরা টিম টিমাইয়া বাঁশ বাগানে জ্বলে, মনের …

Read More »

ইচ্ছে করে

ইচ্ছে করে ডানা মেলে দূর আকাশে উড়ি, যেখান থেকে চাঁদের বুড়ি হাঁসছে মুড়ি মুড়ি। ইচ্ছে করে নৌকা হয়ে নদীর বুকে চড়ি, যেখান থেকে যায় দেখা দূরের গায়ের সাড়ি। ইচ্ছে করে বৃষ্টি হয়ে সবুজ মাঠে পড়ি, যেখান থেকে আবাধ করে ফল ফসলের জুড়ি। ইচ্ছে করে বাঁশির সূরে বাউল হয়ে ঘুরি, যে …

Read More »

কুঁজো বুড়ীর গল্প

কুঁজো বুড়ীর গল্প শুনে খুকু মনি হাঁসে, ফোঁকলা দাতে কালো ফোটা দারুণ চোখে ভাসে। চাঁদের দেশে ঘর বানাইয়া থাকতো কুঁজো বুড়ী, অমাবস্যার গভীর রাতে বুড়ীর মুখে আড়ি। চাঁদ ঐ পূর্ণিমাতে দেখছে লোকে চেয়ে, চাঁদের কুঞ্জে থাকত বসে ছায়া বৃক্ষর পেয়ে। লিখেছেনঃ বাছির আহমেদ।

Read More »