Home / ইসলাম / মাসআলা মাসায়েল / হায়েয অবস্থায় স্ত্রী সহবাসের আরও কিছু মাসআলা

হায়েয অবস্থায় স্ত্রী সহবাসের আরও কিছু মাসআলা

হায়েয অবস্থায় স্ত্রী সহবাসের আরও কিছু মাসআলা পড়ুন “পরিপূর্ণ স্বামী স্ত্রীর মধুর মিলন” বই থেকে।

মাসআলাঃ হায়েয অবস্থায় স্ত্রীর নাভি হতে হাঁটু পর্যন্ত দেহাংশ দেখা বা স্পর্শ করা জায়েয নেই। (বয়ানুল কুরআন)

মাসআলাঃ হায়েয অবস্থায় পুরুষের জন্য স্ত্রীর সাথে সহবাস করা জায়েয নেই। তাছাড়া অন্য সকল কাজ যেমন, এক সাথে পানাহার করা, শুয়া—বসা ইত্যাদি জায়েয আছে। (বেহেশতী জেওর)

মাসআলাঃ স্ত্রীর হায়েয অবস্থায় আনন্দ গ্রহণ উভয় পক্ষ থেকে হতে পারে। স্বামী কর্তৃক স্ত্রী হতে আনন্দ গ্রহণের মাসআলাটি পূর্বে বর্ণিত হয়েছে। বাকি স্ত্রী যদি স্বামী হতে আনন্দ গ্রহণ করতে চায়, সেক্ষেত্রে মাসআলা হল স্ত্রী স্বামীর সম্পূর্ণ দেহটিই দেখতে স্পর্শ করতে এবং তার চুম্বন গ্রহণ করতে পারবে। কিন্তু সে তার নিজের নাভি হতে হাঁটু পর্যন্ত অংশ দ্বারা স্বামির দেহের কোন অংশই করতে পারবে না। (বেহেশতী জেওর)

মাসআলাঃ  হায়েয বা নিফাস অবস্থায় স্ত্রীর নাভি হতে হাঁটু পর্যন্ত দেহাংশ দেখা, কোন আবরণ ছাড়া নিজের  দেহের সহিত মিলান এবং সহবাস করা হারাম।

মাসআলাঃ হায়েয বা নিফাস অবস্থায় স্ত্রীকে  চুম্বন করা বা তার চুম্বন গ্রহণ করা স্ত্রীর ঝুটা পানি পান করা, তাকে জড়ায়ে ধরে শয়ন করা এবং তার নাভি হতে দেহের উপরের অংশ বা হাঁটু হতে দেহের নীচের আবরণমুক্ত অবস্থায় স্পর্শ করা  বা নিজের দেহের সাথে মিলান জায়েয আছে। বরং হায়েযের কারণে স্ত্রী হতে পৃথক হয়ে শয়ন করা বা তার সাথে উঠা—বসা ত্যাগ করা মাকরূহ। (বেহেশতী জেওর)

আপনি পড়ছেন : পরিপূর্ণ স্বামী স্ত্রীর কর্তব্য ও মধুর মিলন (ইসলামিক যৌনজ্ঞানের বই)

হায়েয অবস্থায় যৌন উত্তেজনায় করনীয়

মেয়েদের হায়েয চলাকালিন দেহে যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। আবার পুরুষদের এমন অনেক পুরুষ আছে যারা স্ত্রীর হায়েয (মাসিক) চলাকালিন স্ত্রী সহবাসের বিরত থাকার ধৈর্যধারণ করতে পারেনা। অনেকে উত্তেজনায় প্রবল হয়ে হায়েয চলাকালিন নিষিদ্ধ সহবাস করে ফেলে। তবে হায়েয অবস্থায় স্ত্রী সহবাস না করেও যৌন আনন্দ উপভোগ করা যেতে পারে বা স্বামীর যৌন উত্তেজনায় স্ত্রী এবং স্ত্রীর যৌন উত্তেজনায় স্বামী পুলক লাভের সাহায্য করতে পারে। তাই জেনে নিন হায়েয অবস্থায় স্বামীর যৌন উত্তেজান ও স্ত্রীর যৌন চাহিদা পূরণের বিকল্প উপায় সমুহ।

০১ হায়েয চলাকালিন স্বামীর যৌন উত্তেজনা নিবারণের নিয়ম

নারীর হায়েয অবস্থায় সহবাস নিষিদ্ধ থাকলেও স্বামীর যৌন উত্তেজনা নিবারণে স্ত্রী স্বামীকে সাহায্য করতে যৌন সহবাস করা ব্যতিতই। তাই হায়েয চলাকালিন স্বামী ধৈর্য ধরে রাখতে না পারলে বিকল্প নিয়ম প্রয়োগের মাধ্যমে স্বামীকে যৌন আনন্দ লাভ করাতে পারেন। হায়েয চলাকালিন স্বামীকে যৌন আনন্দ লাভ করার উপায় জানতে নিচের লেখাটি পড়ুন।

পড়ুন : হায়েযের সময় স্বামীকে যৌন আনন্দ দেওয়ার নিয়ম

০২ হায়েযের সময় স্ত্রীর যৌন উত্তেজনা নিবারণের নিয়ম

হায়েয চলাকালিন প্রায় সময় নারীদের দেহে যৌন উত্তেজনা বেড়ে যায় এবং তারা যৌনতা লাভে চরম আগ্রহী হয়ে উঠে। তবে স্বামী চাইলেই হায়েযের সময় স্ত্রীর যৌনতা লাভের জন্য সাহায্য করতে পারে সহবাস না করেই। হায়েযের সময় স্ত্রীর যৌন উত্তেজনা লাভের সাহায্য করতে নিচের লেখাটি পড়ুন।

পড়ুন : হায়েযের সময় স্ত্রীকে যৌন আনন্দ দেওয়ার নিয়ম

সংযোজন ঃ সৈয়দ রুবেল। (সম্পাদকঃ আমার বাংলা পোস্ট)

লেখাটি পড়ার জন্য আমার বাংলা পোস্ট.কম ব্লগ পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ।

আমাদের লেখিত ও প্রকাশিত আর্টিকেল, বই ও লাইফস্টাইল টিপস গুলো পড়ে আপনার কাছে ভালো লাগলে শেয়ার করে আপনার বন্ধুদেরকে জানান। আমাদের প্রকাশিত আর্টিকেল-বই ও টিপস সম্পর্কে আপনার মতামত জানাতে কমেন্ট করুন।

About Syed Rubel

Creative writer and editor of amar bangla post. Syed Rubel create this blog in 2014 and start social bangla bloggin.

Check Also

সফল যৌন মিলন

সফল যৌন মিলন! যৌন মিলনে পূর্ণতৃপ্তি লাভ করার উপায়

সফল যৌন মিলন মানে হলো যেই যৌন মিলনের মাধ্যমে স্বামী স্ত্রী উভয়েই চরম পুলক লাভ …

One comment

  1. মাসিক চলাকালীন আমার দেহে যৌন উত্তেজনা বেড়ে যায়। এই লেখাটি পড়ে উপকৃত হলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *