Breaking News
Home / নারী / নারীর স্বাস্থ্য সমস্যা / স্তনের আকার বৃদ্ধি করতে অভিনব অস্ত্রোপচার

স্তনের আকার বৃদ্ধি করতে অভিনব অস্ত্রোপচার

Photoহলিউডের ডাঃ আয়ান ব্রাউন ক্ষুদ্র ও অপুষ্ট স্তনকে সুগঠিত করে দেবার এক অভিনব অপারেশন আবিস্কার করেছেন। পদ্ধতিটি হল নাভিকুন্ডলী থেকে পাইপের সাহায্যে লবণাক্ত জল স্তনের কোষের মধ্যে পাঠান। তিনি দাবী করেন এই অপারেশনে শরীরে কোথাও দাগ থাকে না। মাত্র ২৯ মিনিটে অপারেশন করা যায়, আর রোগিণীরা পরের দিনই ঘোরাফেরা করতে পারেন।

হলিউডের অনেক কসমেটিক সার্জেন আছেন, যাদের কাজ হল শরীরের দোষক্রটি অপারেশনের সাহায্যে সুন্দর করে দেওয়া। ডাঃ আয়ান ব্রাউন হলিউডের তিনজন বিখ্যাত কসমেটিক সার্জেনের অন্যতম।

মেরিলিন মরগন ২৪ বছরের এক যুবতী। চোখ ধাঁধানো তার রূপ, কিন্তু মনে তার শান্তি নেই, কারণ স্তনদুটি অস্বাভাবিক ভাবে ছোট, অন্য মেয়েদের মত উন্নত নয়।

এই মেরিলিন যখন ডাঃ আয়ান ব্রাউনের ক্লিনিক্তহেকে বেরিয়ে এলেন তখন তিনি সম্পূর্ণ অন্য মানুষ। তার স্তন  “এ” কাপ থেকে পূর্ণস্তনী “সি” কাপের উপযুক্ত হয়ে গেছে।

মেরিলিনের বাড়ির লোকেরা হতভম্ব, তার পুরুষবন্ধু আশ্চর্য হলেও খুশি আর মেরিলিন নিজে তো স্বর্গের আনন্দে।

মেরিলিনের অপারেশন করতে মোট সময় আধঘন্টা। এই মডেল মেয়েটির শরীরে কোথাও কিন্তু অপারেশনের কোনো চিহ্ন দেখতে পাওয়া যায় না। পরদিন বাথরুমে শাওয়ারের নিচে দাঁড়িয়ে নিজের সুন্দর স্তন দেখে খুশিতে উপচে পড়েছিল সে।

অল্পদিনের মধ্যে মেরিলিন চলে এল ঐ তিনজন ডাক্তারের একজনের কাছে এবং ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে কাজ শুরু করল।

বিনা  রক্তপাতে স্তন সুগঠিত করার এই সহজতম অপারেশনের উদ্ভাবক হিসেবে পৃথিবীতে ডাঃ আয়ান ব্রাউন সুপরিচিত নাম।

ডাক্তারীশাস্ত্রে এই অপারেশনের নাম বাইল্যাটারাল অগমেনটেশন ম্যামোপ্লাস্টি। কিন্তু হলিউডে এর নাম মিরাক্যাল।

ডাঃ ব্রাউনের দাবী—এতে চোখে পড়ার মত কাটা চিহ্ন থেকে যায় না, অপারেশন পদ্ধতি খুব সহজ এবং দ্রুত করা যায়, ফলে রোগিণীকে বেশিক্ষণ অজ্ঞান করে রাখতে হয় না, এবং এর কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।

ডাঃ ব্রাউনের ক্লিনিকটা সমুদ্রের ধারে। সেখানে দামী দামী গাড়ি হরদম যাতায়াত করছে। দরজা খুলে অভ্যর্থনা জানাবে অতীতের বিখ্যাত মডেল মেরিলিন, ডাঃ ব্রাউনের দক্ষতার মূর্তিমতী সাক্ষী।

মেরিলিনের অভাবনীয় পরিবর্তন আর কথাবার্তা শুনে রোগিনীদের ভয় কেটে যায়। ডাঃ ব্রাউন অবশ্য বলেছেন যে মেরিলিনের নাকেও একটা অপারেশন তিনি করেছেন, সেই সঙ্গে মুখ থেকে কিছু চর্বি কেটে বাদ দিয়েছেন। কারণ এতে বিজ্ঞাপনের সুবিধা বাড়ে।

শহরের সেরা সুন্দরীদের দেহ যার হাতের অপারেশনের জন্যে অপেক্ষা করে আছে সেই ডাঃ ব্রাউন কিন্তু বেশ হাসিখুশি মানুষ। তিনি বলেন, “প্লাস্টিক সার্জারির ক্ষেত্রে বিরাত আলোড়ন সৃষ্টি করে দিয়েছে এই অপারেশন। এই পদ্ধতিটা প্রথমে সকলের একেবারের অবিশ্বাস্য মনে হয়েছিল।”

 

এই অপারেশনে জটিলতা দেখা দেওয়ার সুযোগ কম। অপারেশনের পর বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ব্যথা থাকে না। আগেকার দিনের অপারেশনে সুস্থহ্যে উঠতে ২/১ সপ্তাহ লেগে যেত। বর্তমানে তা ২৪ ঘন্টা হলেই যথেষ্ট ।

অপারেশনে পর গোসল করতে বাঁধা নেই। তবে ডাক্তার পরামর্শ দেন একটু শান্ত হয়ে থাকতে। গত ৬ মাসে ৫০ টি অপারেশন করেছেন ডাক্তার, এবং সব রোগিণীই সুস্থ আছে।

 

কীভাবে অপারেশনটা হয় 

ডাক্তারের জবানীতেঃ প্রথমে নাভিতে একটা ছোট্ট ফুটো করি, তারপর ধাতুর তৈরী একটা টিউব (নল), যার নাম ম্যামোস্কোপ, ভিতরে  আস্তে আস্তে ঢোকাই, এই টিউবের ভিতরে একটা সরু রডের মত জিনিস আছে যার মাথাটা বন্ধুকের টোটার মত। ত্বকের তলা দিয়ে ঐ টিউবটাকে স্তনের কোষের কাছে নিয়ে যাই, উদ্দেশ্য ওটাকে স্তনের পেশীর ওপরে নিয়ে যাওয়া। তারপর আমি ঐ ভিতরের রডটা বাইরে থেকে টেনে বের করে নিই।

একটি এনডোস্কোপের সাহয্যে তীব্র আলো দিয়ে স্তনের ভিতরটা ভালভাবে দেখতে পাই। তারপর নিশ্চিত হয়ে নিই যে টিউবটা যথাস্থানে পৌঁছেছে। তারপর এই টিউবের মধ্যে দিয়ে একটা সরু যন্ত্র ঢুকিয়ে দিই যার কাজ হল স্তনের কোষগুলোকে প্রশস্ত করা, এটা অনেকটা চুপসানো বেলুনের মতো দেখতে হয়।

তারপর ঐ টিউবের মধ্যে দিয়ে চাপ দিয়ে লবণাক্ত পানি সজোরে ঢুকিয়ে দিই অল্প অল্প করে, এবং যতক্ষণ না পর্যন্ত স্তনের আকার পছন্দসই হচ্ছে ততক্ষণ ওটা ঠোকানো হয়।

বর্ণনা করতে করতে খুশীতে উজ্জ্বল হয়ে উঠেছিল ডাঃ ব্রাউনের মুখ, “অসাধারণ ব্যাপার। এই চাপের ফলে  স্ক্যালগেল, ছুরি বা কাঁচি ব্যবহার না করেই স্তনের মধ্যে ফাঁক জায়গা তৈরী করা যায়। রক্তও পড়ে না। তারপর ঐ বেলুনের মতো জিনিসটাকে বাইরে থেকে হাওয়া দিয়ে ফোলানো হয়, তারপর টিউবের সাহায্যে বেলুনটা যেখানে থাকলে অপারেশন সফল হবে, সেখানে ঠেলে বসিয়ে দিই।

“তারপর ওই টিউবের সাহায্যে ওখানে লবণাক্ত পানি ঢোকাতে থাকি, এবং ফুলতে ফুলতে স্তন যখন উপযুক্ত আকার ধারণ করে তখন কাজ শেষ হয়। পুরো কাজটা করতে ২০ থেকে ৪০ মিনিটের বেশি সময় লাগে না। এই অপারেশনে যেটা ব্যর্থতার প্রধান কারণ হতে পারে সেটা হল যদি পানিভর্তি ঐ বেলুনটা ফেটে যায়। কিন্তু তাতে শারীরিক ক্ষতি হবে না, শরীর লবণাক্ত পানিটাকে শুষে নেবে”।

আগে স্তনে অপারেশন করে সিলিকনের ছোট ছোট ব্যাগ পুরে স্তন বড় করার যে পদ্ধতি ছিল তাতে দেড়-দুঘন্টা সম্য লাগত এবং প্রচুর রক্তপাত হত। এটা বেশ মজার ব্যাপারের মতো। এতে খরচ পড়ে সওয়া দু’লাখ টাকার মতো। আগেকার পদ্ধতিতেও প্রায় একই খরচ পড়ে।

 

ডাঃ ব্রাউনের মতে এও অপারেশন আবিস্কৃত হবার পর পুরনো পদ্ধতি যারা বাতিল করে না, তারা নির্বোধ।  এই পদ্ধতিতে স্তনবৃন্তে স্পর্শকাতরতার গুনটি নষ্ট হয় না। এক্সরে করালে এই “বেলুনেগুলোর” জন্যে কোনো বাধার সৃষ্টি হবে না, যেটা সিলিকন থাকলে হতে পারে। এটা দীর্ঘস্থায়ী এবং সন্তানকে স্তন্যপান করানোর ব্যাপারে বাঁধা নেই।

নারীর স্তন আকৃতিতে সুগঠিত হবে, একেবারে স্বাভাবিক মনে হবে স্তনকে—তবে এর সমস্যার কথা আগেই বলা হয়েছে—গত দশ বছর ৬ শতাংশ ক্ষেত্রে বেলুনটা ফেটে যাওয়ার আশংকা ।

ডাঃ ব্রাউন তার রোগিণীদের একটা কথা বলেন যে, আবার যদি কখনো ঐ বেলুন নতুন করে বসাতে হয় তখন কিন্তু নাভি দিয়ে ওটা করা যাবে না। কারণ ছিন্ন টিস্যুগুলো জমে শক্ত হয়ে উঠে বেলুনের পাশে।

এই অপারেশনের সময় শেষের দিকে স্টেরয়েড ইনজেকশন দেওয়া হয় রোগিণীকে । এটা পিছন দিক দিয়ে ধীরে ধীরে চুঁইয়ে পড়ে যাতে শক্ত হওয়ার ভাবটা নিয়ন্ত্রিত থাকে। এর সঙ্গে সামান্য ম্যাসাজও দরকার। মেরিলিন নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলেছে যে, “ছস্পতাহ আগে অপারেশন হয়েছে, এবং দারুণ ভাল লাগছে। পরদিন বাজারে গিয়েছিলাম, সামান্য ব্যথা ছিল, যেটা বেশি ব্যায়াম করলে হয়।

“আমি আমার পুরুষ বন্ধুকে আগে বলিনি অপারেশনের কথা। কিন্তু এখন সেও খুব খুশি। এটার পর আমার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। মানুষ জিমনাসিয়ামে গিয়ে ব্যায়াম করে শরীর ভাল করার জন্যে, সেলুনে যায় চুল সুন্দর করার জন্যে, এটাও অনেকটা ঐরকম, সার্জেনের কাছে গিয়ে স্তন সুন্দর করিয়ে আনা”।

ডাঃ ব্রাউনও বোধ হয় এত সুন্দর উপমা দিয়ে বলতে পারতেন না। 

আপনি পড়ছেনঃ মেডিক্যাল সেক্স গাইড থেকে>> স্তনের আকার বৃদ্ধি করতে অভিনব অস্ত্রোপচার

প্রিয় পাঠক/পাঠিকাঃ আমাদের সাইটের পোস্ট পড়ে যদি আপনার কাছে ভালো তাহলে শেয়ার করুণ। এবং আপনার বন্ধুদের কে আমন্ত্রণ জানান আমাদের সাইটে যোগ দেওয়ার জন্য।

About Syed Rubel

Creative writer and editor of amar bangla post. Syed Rubel create this blog in 2014 and start social bangla bloggin.

Check Also

নারীরা মাসিকের সময় যে ৭ টি ভুল করে থাকে!

মাসিক নিয়ে নানা লুকোচরি থাকলেও এ সম্পর্কে খোলাখুলি আলোচনা করাটা অনেক বেশী স্বাস্থকর ও নারীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE