Breaking News
Home / ফান / হাসির কৌতুক / শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীর হাঁসির কৌতুক

শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীর হাঁসির কৌতুক

এই পোস্ট গুলো শুধু মাত্র মজা দেওয়ার জন্য।

01

এক ছাত্র পরীক্ষার হলে বসে প্রশ্ন পত্র নিয়ে বেশ অসুস্থ্য হয়ে বিড় বিড় করছে—

শিক্ষকঃ কি ব্যাপার তুমি খাতায় না লিখে বসে বসে উসখুস করছ কেন?

ছাত্রঃ স্যার, প্রশ্ন যে রকম কঠিন এসেছে লিখতে আমার বারোটা বেজে যাবে!!

শিক্ষকঃ তাতে কি? পরীক্ষা ত চলবে ঠিক একটা পর্যন্ত।

02

এক ছাত্র পরীক্ষার হলে বসে প্রশ্নপত্র নিয়ে বেশ অস্থির হয়ে বিড় বিড় করছে।

শিক্ষকঃ কী ব্যাপার তুমি খাতায় না লিখে বসে বসে উসখুস করছ কেন?

ছাত্রঃ প্রশ্ন যে রকম কঠিন এসেছে লিখতে আমার বারোটা বাজবে।

শিক্ষকঃ তাতে কি এখন তো এগারোটা বাজে।

03

এক ছাত্র তার বন্ধুকে চিৎকার করে নিহা নিহা বলে ডাকছে—

শিক্ষকঃ এই নিরঞ্জন তুমি নিহা নিহা বলে কাকে ডাকছ?

ছাত্রঃ   আমার বন্ধুকে স্যার।

শিক্ষকঃ নিহা কন ছেলের নাম হতে  পারে?

ছাত্রঃ না, মানে ওর আসল নাম  নিরঞ্জ হাওলাদার স্যার! আমরা সংক্ষেপে নিহা বলে ডাকি।

শিক্ষকঃ ভাগ্যিস তোদের কালে আমার জম্ম হয়নি।

আমার নাম শান্তুনু লাহিড়ী। (শালা)

04

একদিন এক শিক্ষক তার ছাত্রের কাছে প্রশ্ন করলেন বলতো তোমার সামনে যদি একদিকে কিছু টাকা আর অন্যদিকে জ্ঞান রাখা হয় তবে তুমি কোনটা নিবে?

অনন্যাঃ এটা সোজা স্যার। আমি অবশ্যই টাকা নেব!

শিক্ষকঃ আমি হলে জ্ঞান্টাই নিতাম।

অনন্যাঃ যার যেটার অভাব সে তো সেটাই নেবে স্যার।

05

কলেজে যুক্তিবিদ্যার ক্লাস চলছে। এক পর্যায়ে শিক্ষক এক ছাত্রকে দাঁড় করালেন এবং বললেন—

শিক্ষকঃ আচ্ছা ধর, তুমি চেয়ারে বসেছ চেয়ার মাটিতে স্পর্শ করে আছে অর্থাৎ তুমি মাটিতে বসেছ। এ রকম একটা উদাহরণ দাও তো?

ছাত্রঃ ধরুণ স্যার, আপ্নিন মুরগী খেয়েছেন আর মুরগি কেঁচো খেয়েছে সুতরাং আপনি কেঁচো খেয়েছেন।

শিক্ষকঃ খুব হয়েছে ।  বস।

06

ছাত্র এবং শিক্ষকের মধ্যে কথা হচ্ছে—

শিক্ষকঃ কী ব্যাপার! তুমি গতকাল স্কুলে আসনি কেন?

ছাত্রঃ বৃষ্টির জন্য আসতে পারিনি।

শিক্ষকঃ বৃষ্টি, বলো কী? আরে একে তো শীতকাল তার উপর গতকাল বৃষ্টি হলে তো আমরাও টের পেতাম!

ছাত্রঃ টের পাবেন ক্যামনে স্যার! এই বৃষ্টি তো সেই বৃষ্টি নয়। বৃষ্টি হচ্ছে আমার খালাতো বোন। ঈদের ছুটিতে বেড়াতে এসেছে। তাই ওকে ফেলে স্কুলে আসা হয়নি।

07

শিক্ষক ক্লাসে পড়াচ্ছেন—

শিক্ষকঃ আচ্ছা বলতে পারো দুধের সঙ্গে বিড়ালের কোনখানে মিল আছে?

ছাত্রঃ স্যার, এটা তো খুব সহজ প্রশ্ন।

শিক্ষকঃ তাহলে বলো।

ছাত্রঃ স্যার দুটো থেকেই “ছানা” পাওয়া যায়।

08

শিক্ষক দ্বিতিয় শ্রেণীর ছাত্রী পড়াচ্ছেন বাড়িতে—

শিক্ষকঃ বলতো ‘মাই হেড’ মানে আমার মাথা।

ছাত্রীঃ ‘মাই হেড’ মানে স্যারের মাথা।

ছাত্রীর বাবাঃ বল ‘মাই হেড’ মানে আমার মাথা।

ছাত্রীঃ ‘মাই হেড’ মানে বাবার মাথা।

ছাত্রীর ভাই, বল ‘মাই হেড’ মানে আমার মাথা।

ছাত্রীঃ ‘মাই হেড’ মানে ভাইয়ার মাথা, এরপর মা।

ছাত্রীর মাঃ বল ‘মাই হেড’ মানে আমার মাথা।

09

ছাত্রীঃ এবার  বুঝেছি ‘মাই হেড’ মানে সবার মাথা।

 

শিক্ষকঃ বলো তো! টেবিলে যদি পাঁচটা মাছি থাকে, আর একটি মাছি থাপ্পর দিএয় মেরে ফেলা হয় তাহলে টেবিলে আর কয়টা মাছি থাকবে?

ছাত্রঃ একটা স্যার।

শিক্ষকঃ অবাক হয়ে, কিভাবে?

ছাত্রঃ সবগুলো উড়ে যাবে, শুধু মরাটা পড়ে থাকবে।

 

About নুসরাত জাহান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE